দুর্নীতির অভিযোগ: সমবায় অধিদপ্তরের নিয়োগ পরীক্ষায় ৫১১ পদের ফল বাতিল

মাহবুব আলম লাবলু 

৯ জুলাই, ২০২৪ ১২:২৮ পূর্বাহ্ন

দুর্নীতির অভিযোগ: সমবায় অধিদপ্তরের নিয়োগ পরীক্ষায় ৫১১ পদের ফল বাতিল

নানা অনিয়মের কারণে সমবায় অধিদপ্তরে তৃতীয় ও চতুর্থ শ্রেণির ৫১১ পদে কর্মচারী নিয়োগ পরীক্ষা বাতিল করা হয়েছে। এসব পদে নতুন করে পরীক্ষা নেওয়ার নির্দেশ দিয়েছে মন্ত্রণালয়। নিয়োগ কার্যক্রমে স্বচ্ছতা, জবাবদিহিতা ও গ্রহণযোগ্যতা নিশ্চিত করতে এ নির্দেশ দেয়া হয়েছে। ৫ জুন স্থানীয় সরকার, পল্লী উন্নয়ন ও সমবায় মন্ত্রণালয়ের পল্লী উন্নয়ন ও সমবায় বিভাগ এ সংক্রান্ত প্রজ্ঞাপন জারি করে। প্রজ্ঞাপনে বলা হয়েছে, ‘দৈনিক যুগান্তরে প্রকাশিত সংবাদ ও তদন্ত কমিটির মতামত বিবেচনায় নিয়ে পূর্বের পরীক্ষার ফল বাতিল করে জনবল নিয়োগ প্রক্রিয়াটি নতুনভাবে এমসিকিউ পদ্ধতিতে পরীক্ষা গ্রহণের আদেশ দেওয়া হলো।’ 

তবে অভিযোগ আছে, চাকরি প্রার্থীদের কাছ থেকে নেওয়া কোটি কোটি টাকা ফেরত দেওয়ার ভয়ে চেপে রাখা হয়েছে পরীক্ষা বাতিলের তথ্য। গায়েব করে ফেলা হয়েছে তদন্ত প্রতিবেদন। এ অবস্থায় ৩ জুলাই মন্ত্রণালয়ের আরেক পত্রে, স্বচ্ছতা, জবাবদিহিতা ও গ্রহণযোগ্যতা নিশ্চিত করে নতুন নিয়োগ পরীক্ষার বিষয়ে অগ্রগতি জানাতে বলেছে মন্ত্রণালয়। সংশ্লিষ্ট সূত্রে এসব তথ্য জানা গেছে।

গত বছরের ৯ জুলাই সমবায় অধিদপ্তরের ৫১১ পদে কর্মচারী নিয়োগ ঘিরে ‘শতকোটি টাকা বাণিজ্যে মরিয়া সিন্ডিকেট’ শিরোনামে অনুসন্ধানী প্রতিবেদন প্রকাশ করে যুগান্তর। রিপোর্ট প্রকাশের পরই নিয়োগ দুর্নীতি তদন্তে একটি কমিটি গঠন করেছিল মন্ত্রণালয়। কমিটির তদন্তে নিয়োগ পরীক্ষায় প্রশ্নফাঁসসহ নানা অনিয়মের সত্যতা পাওয়া গেছে বলে মন্ত্রণালয়ে জমা দেওয়া তদন্ত প্রতিবেদনে উল্লেখ করা হয়েছে।


জানা গেছে, ৫১১টি পদে নিয়োগে এমসিকিউ পরীক্ষা বাতিল করে নতুন পরীক্ষা নেওয়ার নির্দেশনা দেওয়া হয়েছে। কিন্তু নিয়োগ বাণিজ্যে জড়িত অধিদপ্তরের অতিরিক্ত নিবন্ধক (প্রশাসন) ও নিয়োগ কমিটির সভাপতি মো. হাফিজুল হায়দার চৌধুরী এবং উপনিবন্ধক (প্রশাসন), নিয়োগ কমিটির সদস্য সচিব মো. আতিকুল ইসলামসহ অন্যান্য সদস্যদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা গ্রহণের বিষয়ে কোনো সুপারিশ নেই তদন্ত প্রতিবেদনে।


সংশ্লিষ্টরা জানান, সাবেক মহাপরিচালকের পথ অনুসরণ করে ‘হাফিজ-আতিক’ সিন্ডিকেট দিয়েই বর্তমান নিবন্ধক ও মহাপরিচালক মো. শরিফুল ইসলাম এই ৫১১টি পদে নিয়োগ সম্পন্ন করতে চান। এজন্য তিনি সচিবসহ সংশ্লিষ্ট সবাইকে অনুরোধ করে নতুনভাবে পরীক্ষা গ্রহণের নির্দেশনাসংক্রান্ত পত্রটি জারি করিয়েছেন।

জানতে চাইলে সমবায় অধিদপ্তরের নিবন্ধক ও মহাপরিচালক মো. শরিফুল ইসলাম বলেন, ‘পরীক্ষা বাতিল করা হয়েছে এটা ঠিক। তবে এখনো নতুন করে পরীক্ষা নেওয়ার প্রক্রিয়া শুরু হয়নি।’ পরীক্ষা বাতিল হলে জড়িতদের বিরুদ্ধে কেন শাস্তিমূলক ব্যবস্থা নেওয়া হলো না-এ প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, ‘আমাকে দেখতে হবে কারা জড়িত ছিল। তবে নতুন করে প্রক্রিয়া শুরু হলে আগের নিয়োগ কমিটিতে যারা ছিলেন তারা কেউ থাকবেন না।’ 

এসব বিষয়ে জানতে চাইলে সমবায় অধিদপ্তরের উপনিবন্ধক (প্রশাসন) ও বাতিল হওয়া নিয়োগ কমিটির সদস্য সচিব মো. আতিকুল ইসলাম কোনো মন্তব্য করতে রাজি হননি। আর অধিদপ্তরের অতিরিক্ত নিবন্ধক (প্রশাসন) ও বাতিল হওয়া নিয়োগ কমিটির সভাপতি মো. হাফিজুল হায়দার চৌধুরীর মোবাইল ফোনে একাধিকবার কল করা হলে তিনি রিসিভ করেননি। (সূত্র: যুগান্তর)।




জাতীয় - এর আরো খবর