‘ফিলিস্তিনের বিষাদকাব্য’ ইতিহাসে ‘প্রতিরোধ সাহিত্য’ হিসেবে অমর হয়ে থাকবে

সাঈদ চৌধুরী

২৬ মার্চ, ২০২৪ ০৯:৩০ পূর্বাহ্ন

‘ফিলিস্তিনের বিষাদকাব্য’ ইতিহাসে ‘প্রতিরোধ সাহিত্য’ হিসেবে অমর হয়ে থাকবে

‘ফিলিস্তিনের বিষাদকাব্য’ লিখেছেন সাহসী কলম সৈনিক দিলু নাসের। কেবল ফিলিস্তিন বিষয়ে স্বতন্ত্র কাব্যগ্রন্থ বাংলা ভাষায় সম্ভবত এটাই প্রথম। ছড়া ও কবিতায় বুলেট ছুড়েছেন খ্যাতিমান এই লেখক। এই কবিতা তাদের জন্য, জ্বলছে ফিলিস্তিন, নব্য হিটলার, ধূসর মরু উঠছে ফুঁসে, শিশুর আর্ত চিৎকার, ‍বিপন্ন সভ্যতা ইত্যাদি শিরোনামের ২০টি লেখা রয়েছে এ গ্রন্থে।

“এই কবিতা তাদের জন্য, এই কবিতা তাদের/ ফিলিস্তিনের ধূসর মাটি রক্তে ভেজা যাদের” কিম্বা “বিশ্বের সব ধূর্ত নেতারা/ হয়েছে যখন বন্য/ দেশে দেশে লোক দিচ্ছে শ্লোগান/ শান্তি সুখের জন্য” এমন সাহসী উচ্চারণ মানবাধিকার সংগ্রামে প্রেরণা জাগাবে।

অধিকৃত ফিলিস্তিনে ইসরায়েলি আগ্রাসন, সামরিক জবরদখল ও ধ্বংসাত্মক বর্বরতার বিরুদ্ধে লেখকের বুদ্ধিবৃত্তিক উপস্থাপনা বাংলা সাহিত্যে নতুন মাত্রা সৃষ্টি করেছে। এই কাব্যগ্রন্থটি ‘প্রতিরোধ সাহিত্য’ হিসেবে ইতিহাসে অমর হয়ে থাকবে।

ছড়াকার ও আবৃত্তিকার হিসেবে সুপরিচিত দিলু নাসের নান্দনিক টিভি উপস্থাপক হিসেবেও বেশ জনপ্রিয়। ‘ফিলিস্তিনের পথে প্রান্তরে’ শীর্ষক তার ভ্রমণ কাহিনী পাঠকপ্রিয় হয়েছে। জেরুজালেম অঞ্চল ঘুরে ঘুরে সচিত্র প্রতিবেদন উপস্থাপন করেও তিনি ইতোমধ্যে সাড়া জাগিয়েছেন ভার্চুয়াল প্লাটফর্মে।

আশির দশকে ছড়া সাহিত্যে সদর্প বিচরণ শুরু করেন দিলু নাসের। একই সময়ে সিলেট বেতারের উপস্থাপক হিসেবেও তার মনোনিবেশের সুউজ্জ্বল গভীরতার প্রকাশ পেয়েছে। বিলেতে এখনো রেডিও-টিভিতে সরব তিনি।

নব্বইয়ের দশকে প্রথম গ্রন্থ বিষ কামড়ের ক্ষুরধার ছড়ার মাধ্যমে সাহিত্যাঙ্গনে আলোচনায় আসেন দিলু নাসের। শুধু প্রণয়ের পদ্য নয়, প্রতিবাদের হাতিয়ার হিসেবে তার ছড়া ঝড় তুলে। এরপর একে একে প্রকাশিত বইয়ের সংখ্যা দশ। উল্লেখযোগ্য গ্রন্থের মধ্যে আরো রয়েছে ছড়ায় ছন্দে বাংলার ইতিহাস, যে সুর হৃদয়ে বাজে, চন্দ্রাহত কবিতা, অনন্ত রক্তের ঝুটি, লন্ডনের ছড়া, সুন্দরের ক্রীতদাস ইত্যাদি।

সুলেখক সৈয়দ আবুল কাসেম লিখেছেন, ‘ফিলিস্তিনের বিষাদকাব্য’ লন্ডন প্রবাসি আমার অনুজ ছড়াকার সাংবাদিক উপস্থাপক দিলু নাসেরের সদ্য প্রকাশিত ছড়া কবিতার বই। বইটিতে দিলু নাসের তুলে ধরেছেন ফিলিস্তিনের নিরীহ নিরপরাধ নারী-পুরুষ শিশুদের উপর বর্বর ইসরাইলী বাহিনীর বর্বরতার করুন কাহিনী। দিলু নাসের একাধিকবার ভ্রমন করেছেন জেরুজালেম-সহ ফিলিস্তিনের বিভিন্ন অঞ্চল। তাই ছড়া কবিতায় তিনি বর্বরতার বিষাদকাব্য রচনার পাশাপাশি বর্ণনা করেছেন ফিলিস্তিনের প্রাচিন ইতিহাস। বাংলাভাষায় সম্ভবত ফিলিস্তিন নিয়ে বিষাদকাব্য গাঁথা এটাই প্রথম। প্রতিটি কবিতায়ে ফুঁটে উঠেছে ফিলিস্তিনের মানুষের করুন আর্তনাদ।

‘এক নিশ্বা‌সে দিলু না‌সের, ফি‌লি‌স্তিন নি‌য়ে বিষাদকাব‌্য’ শিরোনামে তাৎক্ষ‌নিক পাঠ উন্মোচন করে কবি ও ছড়াকার আহমদ ম‌য়েজ লিখেছেন, চলমান সময়‌কে ধারণ ক‌রে ছড়াকার দিলু না‌সের সব সময় উচ্চ‌কিত। লি‌খেন। প‌ড়েন। দু‌টোই পাঠক ও শ্রোতাকে মুগ্ধ ক‌রে। ২০‌টি ছড়াকাব্য নি‌য়ে ৪০ পৃষ্ঠার গ্রন্থ‌টি পাঠকের মন কাড়‌বে নিঃস‌ন্দে‌হে। ছড়াকার দিলু নাসের দ্রুত লে‌খে‌ন, আ‌র দ্রুত তার প্রকাশ ঘ‌টে। তার ভাবনার অস্থির রাজ্য এখনও তারুণ্যে ভরপুর। বিষাদকাব্য সত্যিই এক বিষাদময় আখ্যান। এই ক‌বিতা তি‌নি তা‌দের জন‌্যই লি‌খে‌ছেন যারা বিগত ৭০ বছর ধ‌রে নিজ ভূ‌মির জন‌্য জীবন দি‌য়ে আস‌ছে। নেতা‌নিয়াহু‌কে তি‌নি নব্য হিটলার আখ্যায়িত ক‌রে লিখেন- মানুষ আর পৃ‌থিবীও/ আজ বহু সভ্য/ এরই মা‌ঝে আছে কিছু/ হিটলার নব্য।

কবি মাশূক ইবনে আনিস লিখেছেন, আমার সময়ের সেরা পরিভ্রাজকের নাম দিলু নাসের। সৈয়দপুর, জগন্নাথপুর, সুনামগঞ্জ জেলার এই ভ্রামণিকের পুরো নাম সৈয়দ আবু নাসের দিলু। ৩৬০ আউলিয়ার অন্যতম হজরত সৈয়দ শাহ শামসুদ্দিন (র) এর অন্যতম বংশধর সে। দিলু নাসের প্রতিভার বহুব্রীহির সহস্র অংকুর, এক সব্যসাচী মানুষ।

দিলু নাসের সম্পর্কে উভয় বাংলার খ্যাতিমান কবি সুভাস মুখোপ্যাধায় বলেছেন ‘দিলুর ছড়ায় বাংলা ছড়ায়’।

আমাদের সময়ের আলোকিত লেখক দিলু নাসের। সংগ্রামী জনতার হৃদয়ে দোলা দেয় তার প্রতিবাদী পঙ্‌ক্তি। যেকোনো অন্যায়ে-অবিচারে যার উচ্চারণ সবার হয়ে ওঠে। তার লেখা মানবিক মূল্যবোধ ও বিবেকবোধ জাগ্রত করে। তিনি বর্ণনার বহিঃপ্রকাশ ঘটান নিজস্ব স্বকীয়তায়। বিষয়বস্তু এবং শিল্পশৈলীতে অনন্য তার গান ও গীতিকবিতা।

দিলু নাসের রচিত ‘ফিলিস্তিনের বিষাদকাব্য’পড়ে ফিলিস্তিন নিয়ে অমর কবিদের কথা মনে পড়ছে। জর্দানের সাবেক প্রধানমন্ত্রী আহমাদ তুকানের ভাই কবি ফাদওয়া তুকান (১৯১৭-২০০৩) লিখেছেন ‘গভীর দুঃখ থেকে আমাদের/ ছিটিয়ে দেয়া রক্তের সজীবতা থেকে/ জীবন ও মৃত্যুর কাঁপুনি থেকে/ আমাদের জীবনের পুনর্জন্ম হবে,/ আবার…’

কবি তাবফিক জিয়াদ (১৯২৯ – ১৯৯৪) ইসরায়েলের ন্যাজারথ শহরের মেয়র ছিলেন। ফিলিস্তিন নিয়ে তিনি লিখেছেন ‘অত্যাচার করে বিশ্বাসের ঝলমলে আভাকে/ ধ্বংস করা সহজ নয়!/ সহজ নয় জেনে ফেলা/ বিজয়ের দিকে এক-পা এক-পা করে/ আমাদের এগিয়ে যাওয়া’ ফিলিস্তিন জিন্দাবাদ।

উল্লেখ্য, গত মাসে ( ফেব্রুয়ারি ২০২৪ ) বেরিয়েছে ‘ফিলিস্তিনের বিষাদকাব্য’। প্রকাশ করেছে পাঠশালা। বইটির প্রচ্ছদ করেছেন মোঃ আব্দুস সামাদ। বইটি পাওয়া যাবে সিলেটের আম্বরখানায় জসিম লাইব্রেরী ও আলীগড় লাইব্রেরী এবং জিন্দাবাজার নিউন্যাশন লাইব্রেরী সহ অন্যান্য বইঘরে।




বিবিধ - এর আরো খবর