- Advertisement -
হোম ফিচার আদার যত উপকারিতা

আদার যত উপকারিতা

- Advertisement -

জাগো কণ্ঠ ডেস্ক: আদার ব্যাপারী জাহাজের খোঁজ করে। কৌতুক অর্থে এই বাঘধারার কদর ফুরিয়েছে। কিন্তু আদার গুণের কদরের কমতি হয়নি একটুও। আদার ব্যাপারী এখন আর জাহাজের খোঁজ করুক আর না করুক, আদা আমাদের শরীরকে বাঁচিয়ে চলেছে, রন্ধনশৈলীতেও নেতৃত্ব দিয়ে চলেছে। তাই আজ পুরোটাই আদাময়। আদার দাদাগিরি কিভাবে আমাদের নানানভাবে উপকৃত করছে, তারই একটা বয়ান হয়ে যাক।

সকালে উঠে নুন আর আদা, অরুচি থাকে না দাদা:
প্রতিদিন সকালে গরম পানিতে আদার কুঁচি দিয়ে ফুটিয়ে ছেঁকে নিন। তাতে খানিকটা লেবুর রস আর মধু মেশান। নিয়মিত এই পানীয় পান করলে দূরে থাকবে নানান রোগ। হবে না হজমের গণ্ডগোল। মেদবিহীন শরীর চাইলে এই পানীয় অবশ্য পানযোগ্য। যাদের মর্নিং সিকনেসের ব্যারাম রয়েছে, তাদের জন্য টোটকা হলো প্রতিদিন আদামিশ্রিত পানিতে ২ চা চামচ পুদিনার রস, লেবুর রস মিশিয়ে পান করুন। সৌন্দর্য প্রেমীদের জন্যেও আছে আদার উপহার। আদায় থাকা অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট ত্বক ও চুলের জৌলুস বাড়ায়।

হাঁপানি ও ফুসফুসের সংক্রমণ রোধে:
শ্বাসকষ্ট, হাঁপানি কিংবা ফুসফুসে কোন সংক্রমণ থাকলে আদা হতে পারে বড় সমাধান। প্রতিদিন এক চামচ আদার রস, লেবুর রস আর মধু গরম পানিতে মিশিয়ে চায়ের মতো করে গলায় ঢালুন। ১৫ দিনের মধ্যেই মিলবে সুফল, গ্যারান্টি!

বাতের ব্যথায় দিন যায়, আদা আছে ভয় নাই:
আর্থ্রাইটিস, রিউমাটয়েড বা হাড়ের জোড়ার ব্যথা; যেটিই বলেন না কেন রোগীদের ভোগান্তির শেষ নেই। আবার যতই ডাক্তার বদ্যি ডাকুন, এর নেই কোন স্থায়ী সমাধান। তবে জীবনযাপনের পদ্ধতি বদলের সাথে সাথে আদার ব্যবহার আপনাকে এই রোগ থেকে অনেকটাই মুক্তি দিতে পারে। দিনে দুইবেলা আদার রস লেবুর রস আর মধু গরম পানিতে মিশিয়ে খেলে উপকার পাওয়া যায়। তবে হ্যা, এই কাজে পানি পানের পরিধি বাড়াতে হবে।

ক্যান্সার ও হৃদরোগ প্রতিরোধে:
ক্যান্সারকে দূরে রাখতে মধুর সাথে আদা মিশিয়ে খান। এই দুই উপাদানে উপস্থিত অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট শরীরের বিষাক্ত উপাদান বের করে দেয়। কমিয়ে দেয় ক্যান্সারের কোষ তৈরি হওয়ার আশঙ্কা। হৃদরোগের মুক্তিতেও আদা হতে পারে বন্ধু। এখানেও আদার সাথে দরকারি মধু। নিয়মিত আদা-মধু খেলে ধমনীর চাপ দূর হয়। তাতে করে রক্তচাপ স্বাভাবিক থাকে। হার্ট অ্যাটাকের সম্ভাবনা কমে। একই কারণে স্ট্রোকের ঝুঁকিতে বাঁধ সাধে আদা।

চুলের যত্নে আদা:
আদা শুধু শরীরেই নয়, চুলের সুস্থতাতেও কার্যকরী। এই প্রাকৃতিক উপাদানটি চুলের গোড়ার পুষ্টির ঘাটতি রোধ করে। চুল পড়া কমায় এবং চুলকে করে ঝলমলে। এতে উপস্থিত ম্যাগনেশিয়া, পটাশিয়াম আর ফসফরাস চুলকে আরও শক্তিশালী করে।

যাওয়ার পথে একটা হেয়ার প্যাক এর টোটকা বলে যাই। ১ চামচ আদার পেস্টের সাথে ১ চামচ নারিকেল তেল আর অলিভ অয়েল মিশিয়ে মাথার ত্বকে ভালোমতো লাগান। অপেক্ষা করুন ৩০ মিনিট।#

- Advertisement -
- Advertisement -
- Advertisement -

আরও সংবাদ

- Advertisement -