- Advertisement -
হোম অর্থনীতি সর্বনিম্ন রেটে ক্যাশ আউট সুবিধাদিচ্ছে 'উপায়'

সর্বনিম্ন রেটে ক্যাশ আউট সুবিধাদিচ্ছে ‘উপায়’

- Advertisement -

জাগো কণ্ঠ ডেস্ক: অত্যাধুনিক ব্লকচেইন প্রযুক্তি ও ডিভাইস অথেনটিকেশনের মতো নিরাপত্তা ফিচারযুক্ত করে মার্চে যাত্রা শুরু করা ইউনাইটেড কমার্শিয়াল ব্যাংকের মোবাইল ফিনান্সিয়াল সার্ভিস (এমএফএস) সাবসিডিয়ারি ‘উপায়’ ইউএসএসডি ব্যবহারকারী গ্রাহকদের দিচ্ছে সবচেয়ে কম খরচে ক্যাশ আউট সুবিধা।

বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মশতবার্ষিকী ১৭ মার্চে যাত্রা শুরু করা উপায় এর ইউএসএসডি ব্যবহারকারী গ্রাহকরা ট্যাক্স-ভ্যাটসহ প্রতি হাজারে মাত্র ১৪ টাকায় ক্যাশ আউট করতে পারবেন, যা বাজারে প্রচলিত অন্যান্য মোবাইল ব্যাংকিং সেবাপ্রদানকারী প্রতিষ্ঠানের তুলনায় সর্বনিম্ন। গ্রাহকরা *২৬৮# ডায়াল করে যেকোনো এজেন্ট পয়েন্ট থেকে ক্যাশ আউট করেত পারবেন।

উপায় এর ব্যাবস্থাপনা পরিচালক সাইদুল হক খন্দকার বলেন, আমাদের নিজস্ব সমীক্ষায় দেখেছি যে
বাংলাদেশের প্রায় ৭০ ভাগ মোবাইল লেনদেন সম্পন্ন হয় ইউএসএসডির মাধ্যমে। এই ব্যবহারকারীরা মূলত সমাজের সুবিধাবঞ্চিত, দরিদ্র ও স্বল্প আয়ের মানুষ। আমরা এই জনগোষ্ঠীর সুবিধার কথা ভেবেই ইউএসএসডির মাধ্যমে লেনদেনকারীদের জন্য বাজারের সবচেয়ে কম রেটে ক্যাশ আউট চার্জ নির্ধারণ করেছি।

এছাড়াও উপায় গ্রাহকরা ইউসিবিএল এর এটিএম ব্যাবহার করে হাজারে মাত্র ৮ টাকায় ক্যাশ আউট করতে পারছেন। এটিও বাজারে সর্বনিম্ন রেট। উল্লেখ্য, উপায় অ্যাপ ব্যবহারকারীরাও হাজারে ১৪ টাকা খরচ করে ক্যাশ আউট করতে পারবেন। গুগল প্লেস্টোর হতে উপায় অ্যাপ ডাউনলোড করা যাবে।

বাংলাদেশ ব্যাংকের নিয়ম মেনে গ্রাহকরা কোনো প্রকার চার্জ ছাড়াই এক অ্যাকাউন্ট থেকে অন্য অ্যাকাউন্টে যেকোনো পরিমাণে টাকা লেনদেন করতে পারবেন।

উপায় এর মাধ্যমে মোবাইলে টাকা লেনদেন, ইউটিলিটি বিল পেমেন্ট, কেনাকাটার মুল্য পরিশোধ, রেমিট্যান্স গ্রহণ, বেতন প্রদান, এয়ারটাইম ক্রয় করা যাবে।

এছাড়াও উপায় ব্যবহার করে গ্রাহকরা বেশ কিছু এক্সক্লুসিভ সেবা গ্রহণ করতে পারবেন, যেমন- ইন্ডিয়ান ভিসা ফি, ট্রাফিক ফাইন এবং তিতাস গ্যাসের (প্রি-পেইড) বিল পেমেন্ট । গ্রাহকরা দেশজুড়ে উপায় এর এজেন্ট এবং মার্চেন্ট নেটওয়ার্ক হতে এই সেবা নিতে পারবেন।

দীর্ঘ ৮ বছর ধরে মোবাইল ব্যাংকিং সেবা দিয়ে যাওয়া ইউসিবির ইউক্যাশ ব্র্যান্ড ‘উপায়’ চালুর সাথে সাথেই বন্ধ হয়ে গিয়েছে। ইউক্যাশের গ্রাহকরা বর্তমানে উপায়ের গ্রাহক হিসেবে মোবাইল ব্যাংকিং সেবার সব ধরনের সুযোগ উপভোগ করতে পারছেন।

উপায় প্লাটফর্ম ডিজাইনের ক্ষেত্রে গ্রাহক নিরাপত্তাকে সর্বোচ্চ গুরুত্ব প্রদান করা হয়েছে।

ব্যাংকিং সেবা বহির্ভূত একটা বিশাল জনগোষ্ঠীকে মোবাইল ফোনের মাধ্যমে আর্থিক সেবা প্রদানের মাধ্যমে আর্থিক অন্তর্ভুক্তি বেগবান করতে ২০১১ সালে মোবাইল ব্যাংকিং সেবা চালু হয়। বর্তমানে ১৫টি ব্যাংক এই সেবাটি প্রদান করছে। বাংলাদেশ ব্যাংকের তথ্য মোতাবেক, মোবাইল ব্যাংকিং গ্রাহক সংখ্যা ১০.২৩ কোটি। প্রতিদিন গড় লেনদেনের পরিমাণ ১৯৬৬ কোটি।

উল্লেখ্য, বাংলাদেশ ব্যাংক ২০২০ সালের ডিসেম্বর মাসে ইউসিবি ফিনটেক কম্পানির অনুকূলে মোবাইল ব্যাংকিং লাইসেন্স প্রদান করে। ইউসিবি ফিনটেক উপায় ব্র্যান্ড নামে মার্চে মোবাইল ব্যাংকিং সেবা চালু করে।

- Advertisement -
- Advertisement -
- Advertisement -

আরও সংবাদ

- Advertisement -