- Advertisement -
হোম রাজনীতি ভালো আছেন খালেদা জিয়া: মেডিকেল টিমের মন্তব্য

ভালো আছেন খালেদা জিয়া: মেডিকেল টিমের মন্তব্য

- Advertisement -

নিজস্ব প্রতিবেদক: করোনা আক্রান্ত বিএনপি চেয়ারপারসন ও সাবেক প্রধানমন্ত্রী খালেদা জিয়া ভালো আছেন, তার শারিরীক অবস্থাও স্থিতিশীল আছে বলে জানিয়েছেন তার মেডিকেল টিমের প্রধান অধ্যাপক এফ এম সিদ্দিকী।
সোমবার সন্ধ্যায় গুলশানে খালেদা জিয়ার বাসভবন ফিরোজায় তার স্বাস্থ পরীক্ষা শেষে সাংবাদিকদের তিনি এসব কথা জানান।
এফ এম সিদ্দিকী বলেন, খালেদা জিয়ার শারীরিক অবস্থা স্থিতিশীল আছে। তিনি ভালো আছেন, স্বাভাবিক আছেন। এখন পর্যন্ত করোনায় তার শারীরিক কোনো জটিলতা দেখা যায়নি।
বেগম জিয়ার শরীরে রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা কেমন জানতে চাইলে তিনি বলেন, ম্যাডামের শরীরের রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা আজ পর্যন্ত যথেষ্ট ভালো আছে, আলহামদুলিল্লাহ। এভাবে এক সপ্তাহ গেলে বলা যাবে উনার শারিরীক অবস্থা শঙ্কা মুক্ত। ৪৮ ঘন্টা পর পর খালেদা জিয়ার শারিরীক পরীক্ষা করা হচ্ছে বলেও জানিয়েছেন চিকিৎসক দলের প্রধান অধ্যাপক এফ এম সিদ্দিকী।
এদিন খালেদা জিয়ার স্বাস্থ্য পরীক্ষার সময় বিদেশ থেকে কোনো চিকিৎসক ভার্চুয়ালি যুক্ত ছিলেন কিনা জানতে চাইলে তিনি বলেন, আমাদের সঙ্গে ইউকে থেকে চিকিৎসক যুক্ত ছিলেন। এ ছাড়া বেগম জিয়ার বড় ছেলে তারেক রহমানের স্ত্রী ডা. জোবায়দা রহমানও যুক্ত ছিলেন, তিনি সব কিছু তদারকি করছেন।
বিএনপি চেয়ারপারসনকে হাসপাতালে ভর্তি করা হবে কিনা জানতে চাইলে এফ এম সিদ্দিকী বলেন, এখন পর্যন্ত তাকে বাসায় রেখে চিকিৎসা দেয়ার সিদ্ধান্ত রয়েছে। তবে হাসপাতলে নেয়ার পরিস্থিতি দেখা দিলে সে প্রস্তুতিও আমাদের আছে। আমরা সব রকম প্রস্তুতি নিয়ে রেখেছি।
তিনি জানান, খালেদা জিয়া দেশের সবার কাছে দোয়া চেয়েছেন। এবং বলেছেন সবাই যেন সাবধানে থাকে, স্বাস্থবিধি মেনে চলে।
এসময় তার সাথে ছিলেন খালেদা জিয়ার চিকিৎসক ও বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান ডা. এ জেডএম জাহিদ হোসেন ও ডা. আল মামুন।
এর আগে খালেদা জিয়ার স্বাস্থ্যের বিষয়টি পর্যালোচনা করতে বৈঠকে বসে তার ব্যক্তিগত মেডিকেল বোর্ড। মেডিসিন ও বক্ষ ব্যাধি বিশেষজ্ঞ অধ্যাপক এফ এম সিদ্দিকীর নেতৃত্বে মেডিকেল বোর্ড সোমবার বিকালে গুলশানে চেয়ারপারসনের বাসা ‘ফিরোজায়’ বসেন।
মেডিকেল টিমে আরও রয়েছেন বক্ষব্যাধি ও মেডিসিন বিশেষজ্ঞ অধ্যাপক আব্দুস শাকুর খান, ইউরোলোজিস্ট অধ্যাপক এজেডএম জাহিদ হোসেন ও ডা. মো. আল মামুন।
ফিরোজায় খালেদা জিয়া ছাড়াও ৮ জন কোভিড-১৯ আক্রান্ত হয়েছেন। তাদের মধ্যে দুই জনকে নিজেদের বাড়িতে পাঠানো হয়েছে বলে জানা গেছে। অন্যান্যদের চিকিৎসা ‘ফিরোজা’তেই হচ্ছে।
গত শনিবার খালেদা জিয়ার নমুনা পরীক্ষা শেষে রোববার তার করোনা পজেটিভ শনাক্ত হয়। ওইদিনই মেডিসিনের বিশেষ চিকিৎসক এফএম সিদ্দিকীর নেতৃত্বে তার ব্যক্তিগত চিকিৎসকরা চিকিৎসা শুরু করেন।
৭৫ বছল বয়সী সাবেক প্রধানমন্ত্রী খালেদা জিয়া দুর্নীতির দুই মামলায় দণ্ডিত। দণ্ড নিয়ে তিন বছর আগে তাকে কারাগারে যেতে হয়।
দেশে করোনাভাইরাসের সংক্রমণ শুরুর পর পরিবারের আবেদনে সরকার গত বছরের ২৫ মার্চ ‘মানবিক বিবেচনায়’ শর্তসাপেক্ষে তাকে সাময়িক মুক্তি দেয়। তখন থেকে তিনি গুলশানে নিজের ভাড়া বাসা ফিরোজায় থেকে চিকিৎসা নিচ্ছেন। তার সঙ্গে বাইরের কারও যোগাযোগ সীমিত।
দোয়া ও প্রার্থনা: খালেদা জিয়ার আশু রোগমুক্তি ও সুস্থতা কামনায় হিন্দু, বৌদ্ধ, খ্রিষ্টান কল্যাণ ফ্রন্টের উদ্যোগে সোমবার বিকেলে ঢাকেশ^রী জাতীয় মন্দিরে হিন্দু ধর্মমতে প্রার্থনা অনুষ্ঠিত হয়।
করোনা পরিস্থিতিতে সীমিত পরিসরে স্বাস্থ্যবিধি মেনে অনুষ্ঠিত প্রার্থনা অনুষ্ঠানে সাবেক প্রতিমন্ত্রী গৌতম চক্রবর্তী এবং হিন্দু, বৌদ্ধ, খ্রিষ্টান কল্যাণ ফ্রন্ট নেতা সুকৃতি মন্ডল, অমলেন্দু দাস, রমেশ দত্ত, তরুণ দে, মিল্টন বৈদ্য, জয়দেব জয়, সুবীর বর্ধণ, সঞ্জয় গুপ্ত, মিন্টু বসুসহ অন্যান্যরা যোগ দেন।
অনুষ্ঠানে বিএনপির সাংগঠনিক সম্পাদক সৈয়দ এমরান সালেহ প্রিন্স এবং সহ-বন ও পরিবেশ বিষয়ক সম্পাদক কাজী রওনাকুল ইসলাম টিপু উপস্থিত ছিলেন।
প্রার্থনা অনুষ্ঠানে হিন্দু ধর্মীয় আচার-অনুষ্ঠানের মাধ্যমে খালেদা জিয়ার করোনামুক্ত সুস্থ জীবন কামনা করা হয়।
অন্যদিকে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ের জাতীয়তাবাদী শিক্ষক, চিকিৎসক, নার্স, কর্মকর্তা-কর্মচারীরা খালেদা জিয়ার করোনায় আক্রান্ত হবার খবরে গভীর উদ্বেগ প্রকাশ করছেন। তাঁর রোগমুক্তি ও সুস্বাস্থ্য কামনায় সোমবার বিএসএমএমইউ কেন্দ্রীয় জামে মসজিদে জোহরের নামাজের পর “কোরআন খতম ও দোয়ার” আয়োজন করা হয়। এতে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ের সর্বস্তরের শিক্ষক, চিকিৎসক, নার্স, কর্মকর্তা-কর্মচারী ছাড়াও বিপুল সংখ্যক মুসল্লী উপস্থিত ছিলেন।#

- Advertisement -
- Advertisement -
- Advertisement -

আরও সংবাদ

- Advertisement -